মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন

টিনএজারদের মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি করছে সোস্যাল মিডিয়া

admin
  • আপডেট টাইম : শনিবার ৩০ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৪০ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক : দীর্ঘ সময় ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার কিশোর-কিশোরীদের মানসিক স্বাস্থ্য ক্ষতিগ্রস্ত করছে। থিংক ট্যাংক এডুকেশন পলিসি ইনস্টিটিউট এবং দাতব্য সংস্থা দ্য প্রিন্সেস ট্রাস্টের যৌথ একটি গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। গবেষণার তথ্য অনুযায়ী, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বয়সের সব শিশুর ক্ষেত্রে সুস্থতা ও আত্মমর্যাদাবোধ একই রকম থাকে। তবে ১৪ বছর বয়সে কিশোর-কিশোরীদের সুস্থতা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এক্ষেত্রে কিশোরদের চেয়ে কিশোরীদের ওপর বেশি প্রভাব পড়ে।

গবেষণাটিতে উঠে এসেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয় শেষে সাতজনের একজন মেয়েশিশু নিজেদের কেমন দেখাচ্ছে, তা নিয়ে অসন্তুষ্ট ছিল। যেখানে ১৪ বছর বয়সী কিশোরীদের এ অসন্তুষ্টির হার তিনজনের মধ্যে একজন। এদিকে সম্ভাব্য মানসিক অসুস্থতায় আক্রান্ত যুবকের সংখ্যা ২০১৭ সালে যেখানে নয়জনের মধ্যে একজন ছিল, সেটি এখন বৃদ্ধি পেয়ে ছয়জনের মধ্যে একজনে দাঁড়িয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অতিরিক্ত ব্যবহার কিশোর-কিশোরী নির্বিশেষ সুস্থতা ও আত্মমর্যাদাবোধে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। তবে কিশোরদের চেয়ে অনেক বেশি কিশোরী বিষণ্নতা ও হতাশার অনুভূতির মধ্যে রয়েছে। মিলেনিয়াম কোহোর্ট স্টাডি থেকে ইংল্যান্ডের পাঁচ হাজার তরুণ-তরুণীর ডাটা ব্যবহার করা হয়েছে। এ বয়সীদের ওপর নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর প্রভাব পরীক্ষা করার জন্য গত নভেম্বরে গবেষণাটি পরিচালনা করা হয়েছিল।

গবেষণাটিতে দেখা গেছে, পারিবারিক আয়, শারীরিক অনুশীলন ও দুর্বল মাতৃস্বাস্থ্যও মানসিক স্বাস্থ্যে অবদান রেখেছিল। নিয়মিত অনুশীলনের ফলে কিশোর-কিশোরী উভয়েরই মানসিক স্বাস্থ্যে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছিল। বিদ্যালয় বন্ধ ও লকডাউনের কারণে ক্রিয়াকলাপ ও খেলাধুলায় অংশগ্রহণ কমে যাওয়ার বিষয়টিও মানসিক স্বাস্থ্য ও সুস্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা ও শারীরিক অনুশীলনের জন্য তরুণ-তরুণীদের আরো ভালো প্রবেশাধিকার থাকা উচিত।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ জাতীয় আরো খবর..