রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ০৩:১৭ অপরাহ্ন

নীলক্ষেত ষড়যন্ত্রের পর এবার প্রতিবাদ লিপি ষড়যন্ত্র

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৬২ বার পঠিত

গত ১৭ফেব্রুয়ারি দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর অভিযুক্তরা পত্রিকার কার্যালয়ে প্রতিবাদ লিপি দেয়।
বাংলাদেশ সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির অফিসিয়াল প্যাডে সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক যৌথ স্বাক্ষরে এই চিঠি পাঠায়।
প্রতিবাদ লিপির একটি মন্তব্যে জুনিয়রদের হেয় প্রতিপন্ন করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোপের মুখে পড়ে শীর্ষ নেতৃত্ব। তবে স্বাক্ষরকারী দুইজনের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ সালমী ফেসবুকে তার টাইমলাইনে বিবৃতি দেয় সে এই সংক্রান্ত কোনো বিবৃতি দেয় নাই। সাধারণ শিক্ষকরা জানতে চায়- তাহলে সমিতির সীল, প্যাড, কর্তৃত্ব কার কাছে জিম্মি? এযাবত সমিতির অনেক সদস্য মারা গেছে, অবসরে গেছে এমনকি সাধারণ সম্পাদক জনস্বার্থে বদলি হলেও সমিতির প্যাড ব্যবহার করা হয়নি। অথচ কুকর্মে লিপ্তদের নির্দোষ প্রমাণ করতে সমিতিকে ঢাল বানানোর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে যত্রতত্র। তবে প্রতিবাদ লিপিতে স্বাক্ষরকারী অপর ব্যক্তি সাংগঠনিক সম্পাদক মো.আবদুস সালাম এখন পর্যন্ত কোনো বিবৃতি দেয় নাই। যদিও প্রতিবাদ লিপির প্রত্যেক পৃষ্ঠায় তার স্বাক্ষর রয়েছে। কথিত হচ্ছে এই প্রতিবাদ লিপির ড্রাফট হয়েছে উপপরিচালক (মাধ্যমিক) মোহাম্মদ আজিজ উদ্দিনের অফিস কক্ষে। ইতোপূর্বে তাদের বিরুদ্ধে নীলক্ষেত ষড়যন্ত্র শিরোনামে পত্রিকার রিপোর্ট প্রকাশ হয়। সেখানে সিনিয়র শিক্ষক পদোন্নতির গ্রেডেশন তালিকার একটি গুরুত্বপূর্ণ কলাম যোগসাজশ করে মুছে দেয়ার গুরুতর অভিযোগ রয়েছে উভয়ের বিরুদ্ধে।
এত অভিযোগ ও ষড়যন্ত্রের নকশাকারী ব্যক্তিরা কিভাবে মাউশি সহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে দাপিয়ে বেড়ায় সাধারণ শিক্ষকদের জিজ্ঞাসা।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ জাতীয় আরো খবর..