শিরোনামঃ
সুচনাকে মেয়র হিসেবে গ্রহন করলেন ঢাকাস্থ কুমিল্লা মহানগর নাগরিক ফোরাম কক্সবাজারের সুগন্ধা বিচের নতুন নাম ‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ করায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন গ্রীস ফেরত অসুস্থ বেলায়েত হোসেনের পাশে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক ও ব্র্যাক এই প্রথম ইসরায়েলের কোনো নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যার পর ব্যবসায়ীর আত্মহত্যার চেষ্টা ৪ মাসে গাজায় নিহত হয়েছে ১০ হাজার হামাস যোদ্ধা : ইসরায়েল তুরাগতীরে দেশের বৃহত্তম জুমার জামাত আজ ১২শ স্বেচ্ছাসেবী নিয়ে প্যারিস খালে অভিযান শুরু মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইরানে মৃত্যুবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে জোড়া বিস্ফোরণ, নিহত বেড়ে ১০৩

ব্রাজিলের সাথে জিততে মরিয়া ক্যামেরুন

#
news image

কাতার বিশ্বকাপে কাল লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ব্রাজিলের মুখোমখি হবে ক্যামেরুন। ইতোমধ্যেই প্রথম দুই ম্যাচে জয়ী টুর্ণামেন্ট ফেবারিট ব্রাজিল নক আউট পর্ব নিশ্চিত করায় কালকের ম্যাচটি তাদের জন্য ততটা গুরুত্বপূর্ণ না হলেও ক্যামেরুন শেষ ষোল নিশ্চিতে শেষ চেষ্টা করবে। প্রথম দুই ম্যাচে মাত্র এক পয়েন্ট পাওয়া আফ্রিকান অদম্য সিংহদের সামনে জয় ভিন্ন বিকল্প পথ খোলা নেই। গ্রুপ-জি’র আরেক ম্যাচে সার্বিয়া যদি সুইজারল্যান্ডকে এক গোলের ব্যবধানে পরাজিত করতে পারে তাহলে গোল ব্যবধানে ব্রাজিলের পরে দ্বিতীয় দল নির্ধারিত হবে।

সুইজারল্যান্ডের সাথে ১-০ গোলে পরাজয় দিয়ে বিশ^কাপ শুরু করেছিল ক্যামেরুন। ব্রিল এম্বোলের তার জন্মভূমির বিরুদ্ধে গোল করে সুইসদের জয় নিশ্চিত করেছিলেন। এর মাধ্যমে আফ্রিকান দলটি বিশ^কাপে টানা আট ম্যাচে পরাজয় বরণ করতে বাধ্য হয়। অথচ সুইসদের বিপক্ষে সমান তালে লড়াই করেছিল ক্যামেরুন। সার্বিয়ার সাথেও একইভাওে লড়াই করে ৩-১ গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ৩-৩ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে রবার্ট সংয়ের দল। এই ড্রয়ে কালকের ম্যাচের আগে পরের রাউন্ডে যাবার ক্ষীণ একটি সম্ভাবনা জাগিয়ে রেখেছে ক্যামেরুন। টুর্ণামেন্টের অন্যতম ফেবারিট ব্রাজিলের বিরুদ্ধে কিছু একটা করে দেখানোর মত যোগ্যতা যে তাদের আছে তা আগের দুই ম্যাচেই প্রমানিত হয়েছে। 

সং নিজের দলের পারফরমেন্সে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে জানিয়েছে ব্রাজিলের সাথেও এই ধারা বজায় থাকবে। আগের দুই ম্যাচে যেভাবে পুরো দলের আত্মবিশ^াস প্রমান পেয়েছে তাতে যেকোন প্রতিপক্ষই এখন ক্যামেরুনের সাথে খেলতে নামার আগে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করবে। এদিকে প্রত্যাশানুযায়ী প্রথম দুই ম্যাচে জয়ী হয়ে ইতোমধ্যেই শেষ ষোলতে পৌঁছে গেছে ব্রাজিল। এবারের টুর্ণামেন্টে সেলেসাওরা এখনো কোন গোল হজম করেনি। সার্বিয়ার সাথে ২-০ গোলের জয়ের প্রথম ম্যাচটিতে টটেনহ্যাম হটস্পারের স্ট্রাইকার রিচারলিসন জোড়া গোল করেছেন। এরপর সুইজারল্যান্ডের সাথে পরের ম্যাচে ক্যাসেমিরোর একমাত্র গোলে জয় নিশ্চিত হয়। 

ক্যামেরুনের সাথে সর্বশেষ ২০১৪ বিশ^কাপের গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছির ব্রাজিল। ঘরের মাঠের ঐ ম্যাচে নেইমারের জোড়া গোলে ব্রাজিল ৪-১ ব্যবধানে জয়ী হয়েছিল। দলের হয়ে বাকি গোল দুটি করেছিলেন ফ্রেড ও ফার্নান্দিনহো। এবার ইনজুরির কারনে নেইমার আর খেলতে পারছেন না। কাল জয়ী হতে পারলে গ্রুপ লিডার হিসেবেই ব্রাজিল পরের রাউন্ডে যাবে। যেখানে তাদেও সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ গ্রুপ-এইচ রানার্স-আপ ঘানা কিংবা উরুগুয়ে। কোচের সাথে বিরোধীতা কওে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ইতোমধ্যেই দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে ক্যামেরুনের প্রথম দলের গোলরক্ষক আন্দ্রে ওনানাকে। যে কারনে অনভিজ্ঞ ডেভিন এপাসিরর উপরই আরো একবার ভরসা করতে হচ্ছে। গত ম্যাচে বেঞ্চ থেকে উঠে এসে গোল করা ভিনসেন্ট আবুবকর কাল শুরু থেকেই খেলবেন বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। 

ইনজুরির কারনে ব্রাজিল দলে দেখা যাবেনা বেশ কয়েকজনকে। যাদের মধ্যে অন্যতম এ্যালেক্স সান্দ্রো। কোমরের ইনজুরির কারনে গত ম্যাচের শেষ ভাগে তিনি মাঠের বাইরে চলে যেতে বাধ্য হন। তার অনুপস্থিতিতে লেফট-ব্যাক হিসেবে এ্যালেক্স টেলেসের মূল একাদশে খেলা প্রায় নিশ্চিত। গত ম্যাচে শেষ পাঁচ মিনিট তিনি মাঠে ছিলেন। গোঁড়ালির ইনজুরির কারনে নেইমার কালকের ম্যাচেও বিশ্রামে থাকবেন। যেহেতু নক আউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেছে সে কারনে মূল দলের কয়েকজনকে বিশ্রাম দিতে পারেন তিতে। এর ফলে ব্রুনো গুইমারায়েস, গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও এন্টোনিরা আরো বেশী সময় খেলার সুযোগ পেতে পারেন।

প্রভাতী খবর ডেস্ক

০১ ডিসেম্বর, ২০২২,  10:13 PM

news image

কাতার বিশ্বকাপে কাল লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ব্রাজিলের মুখোমখি হবে ক্যামেরুন। ইতোমধ্যেই প্রথম দুই ম্যাচে জয়ী টুর্ণামেন্ট ফেবারিট ব্রাজিল নক আউট পর্ব নিশ্চিত করায় কালকের ম্যাচটি তাদের জন্য ততটা গুরুত্বপূর্ণ না হলেও ক্যামেরুন শেষ ষোল নিশ্চিতে শেষ চেষ্টা করবে। প্রথম দুই ম্যাচে মাত্র এক পয়েন্ট পাওয়া আফ্রিকান অদম্য সিংহদের সামনে জয় ভিন্ন বিকল্প পথ খোলা নেই। গ্রুপ-জি’র আরেক ম্যাচে সার্বিয়া যদি সুইজারল্যান্ডকে এক গোলের ব্যবধানে পরাজিত করতে পারে তাহলে গোল ব্যবধানে ব্রাজিলের পরে দ্বিতীয় দল নির্ধারিত হবে।

সুইজারল্যান্ডের সাথে ১-০ গোলে পরাজয় দিয়ে বিশ^কাপ শুরু করেছিল ক্যামেরুন। ব্রিল এম্বোলের তার জন্মভূমির বিরুদ্ধে গোল করে সুইসদের জয় নিশ্চিত করেছিলেন। এর মাধ্যমে আফ্রিকান দলটি বিশ^কাপে টানা আট ম্যাচে পরাজয় বরণ করতে বাধ্য হয়। অথচ সুইসদের বিপক্ষে সমান তালে লড়াই করেছিল ক্যামেরুন। সার্বিয়ার সাথেও একইভাওে লড়াই করে ৩-১ গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ৩-৩ গোলের সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে রবার্ট সংয়ের দল। এই ড্রয়ে কালকের ম্যাচের আগে পরের রাউন্ডে যাবার ক্ষীণ একটি সম্ভাবনা জাগিয়ে রেখেছে ক্যামেরুন। টুর্ণামেন্টের অন্যতম ফেবারিট ব্রাজিলের বিরুদ্ধে কিছু একটা করে দেখানোর মত যোগ্যতা যে তাদের আছে তা আগের দুই ম্যাচেই প্রমানিত হয়েছে। 

সং নিজের দলের পারফরমেন্সে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে জানিয়েছে ব্রাজিলের সাথেও এই ধারা বজায় থাকবে। আগের দুই ম্যাচে যেভাবে পুরো দলের আত্মবিশ^াস প্রমান পেয়েছে তাতে যেকোন প্রতিপক্ষই এখন ক্যামেরুনের সাথে খেলতে নামার আগে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করবে। এদিকে প্রত্যাশানুযায়ী প্রথম দুই ম্যাচে জয়ী হয়ে ইতোমধ্যেই শেষ ষোলতে পৌঁছে গেছে ব্রাজিল। এবারের টুর্ণামেন্টে সেলেসাওরা এখনো কোন গোল হজম করেনি। সার্বিয়ার সাথে ২-০ গোলের জয়ের প্রথম ম্যাচটিতে টটেনহ্যাম হটস্পারের স্ট্রাইকার রিচারলিসন জোড়া গোল করেছেন। এরপর সুইজারল্যান্ডের সাথে পরের ম্যাচে ক্যাসেমিরোর একমাত্র গোলে জয় নিশ্চিত হয়। 

ক্যামেরুনের সাথে সর্বশেষ ২০১৪ বিশ^কাপের গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছির ব্রাজিল। ঘরের মাঠের ঐ ম্যাচে নেইমারের জোড়া গোলে ব্রাজিল ৪-১ ব্যবধানে জয়ী হয়েছিল। দলের হয়ে বাকি গোল দুটি করেছিলেন ফ্রেড ও ফার্নান্দিনহো। এবার ইনজুরির কারনে নেইমার আর খেলতে পারছেন না। কাল জয়ী হতে পারলে গ্রুপ লিডার হিসেবেই ব্রাজিল পরের রাউন্ডে যাবে। যেখানে তাদেও সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ গ্রুপ-এইচ রানার্স-আপ ঘানা কিংবা উরুগুয়ে। কোচের সাথে বিরোধীতা কওে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ইতোমধ্যেই দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে ক্যামেরুনের প্রথম দলের গোলরক্ষক আন্দ্রে ওনানাকে। যে কারনে অনভিজ্ঞ ডেভিন এপাসিরর উপরই আরো একবার ভরসা করতে হচ্ছে। গত ম্যাচে বেঞ্চ থেকে উঠে এসে গোল করা ভিনসেন্ট আবুবকর কাল শুরু থেকেই খেলবেন বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। 

ইনজুরির কারনে ব্রাজিল দলে দেখা যাবেনা বেশ কয়েকজনকে। যাদের মধ্যে অন্যতম এ্যালেক্স সান্দ্রো। কোমরের ইনজুরির কারনে গত ম্যাচের শেষ ভাগে তিনি মাঠের বাইরে চলে যেতে বাধ্য হন। তার অনুপস্থিতিতে লেফট-ব্যাক হিসেবে এ্যালেক্স টেলেসের মূল একাদশে খেলা প্রায় নিশ্চিত। গত ম্যাচে শেষ পাঁচ মিনিট তিনি মাঠে ছিলেন। গোঁড়ালির ইনজুরির কারনে নেইমার কালকের ম্যাচেও বিশ্রামে থাকবেন। যেহেতু নক আউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেছে সে কারনে মূল দলের কয়েকজনকে বিশ্রাম দিতে পারেন তিতে। এর ফলে ব্রুনো গুইমারায়েস, গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও এন্টোনিরা আরো বেশী সময় খেলার সুযোগ পেতে পারেন।